0
পাবদা মাছের রেণু চাষ পদ্ধতি

বাংলাদেশের ছোট মাছগুলোর মধ্যে সবার কাছে পাবদা খুব প্রিয় মাছ। পাবদা মিঠা পানির মাছ খেতে খুব সুস্বাদু। অতীতে প্রকৃতিক জলাশয়ে  যেমন হাওড়-বাওড়, খাল-বিল, নদী-নালাতে প্রচুর পরিমাণে পাওয়া যেত। পাবদা মাছের সরবরাহ কম থাকায় বাজারে চাহিদা এবং বিক্রয় মূল্য বেশি হওয়ায় দিনদিন এই মাছের চাষ বেড়েই চলছে।

পাবদা মাছের সহন ক্ষমতা কম, এক জায়গা থেকে অন্য জায়গায় পরিবহণ করার সময় খুবই ঝামেলায় পড়তে হয়। সব থেকে ভাল হয় চাষী নিজে রেনু সংগ্রহ করে নার্সিং করতে পারলে। পুকুরে পাবদা মাছের রেণু চাষ পদ্ধতি আলোচনা করা হলে।

পাবদা মাছের নার্সারি পুকুর প্রস্তুতি

পাবদা মাছের নার্সারি পুকুরে পোনা বেঁচে থাকার হার নির্ভর করে পুকুরের নার্সারি ব্যবস্থাপনার ওপর। এ কারণেই নার্সারি পুকুর প্রস্তুত থেকে শুরু করে পোনা সংগ্রহ পর্যন্ত বেশি সতর্ক থাকতে হবে। পাবদা পোনার নার্সারি করার সময় নিচের পদ্ধতি গুলো অনুসরণ করা হয়।

  • নার্সারি পুকুর ১৫-৩০ শতাংশ হতে হবে এবং গভিরতা ২.৫-৩.৫ ফুট হলে ভাল হয় ৪ ফুটের বেশি নয়।
  • পুকুরের পাড়ের সমস্ত আগাছা পরিষ্কার করে নিতে হবে।
  • পুকুরে কমপক্ষে ৮ ঘন্টা রোদ থাকে এমন পুকুর নির্বাচন করতে হবে।
  • পুকুর প্রস্তুতির জন্য পুকুর সেচ দিয়ে কমকরে হলেও ৭ দিন শুকিয়ে নিতে হবে। পুকুরের তলায় কাদার পরিমাণ বেশি হলে কিছুটা কাদা তুলে নিতে হবে।
  • পুকুরের তলদেশ মই দিয়ে সমান করতে হবে।
  • প্রতি শতাংশে ১ কেজি হারে চুন দিয়ে হালকা নিড়ানি দিয়ে দিলে ভাল হয়।
  • চুন দেওয়ার তিন দিন পর পুকুরে পানি দিতে হবে।
  • পুকুরে চুন প্রয়োগের ৩ দিন পর প্রাকৃতিক খাবার তৈরি হওয়ার জন্য, প্রতি শতাংশে ১০০ গ্রাম খৈল ও ৭০ গ্রাম চিটাগুড় একত্রে মিশিয়ে ২৪ ঘন্টা ভিজিয়ে রেখে দিনের বেলায় রোদ থাকা অবস্থায় ‍সাড়া পুকুরে ছিটিয়ে দিতে হবে।
  • নার্সারি পুকুরের চারপাশে ভালভাবে নেটদিয়ে বেড়া দিতে হয়।
  • পুকুরে হাঁস পোকা সহ বিভিন্ন পোকা দমনের জন্য প্রতি শতকে ১০ মিলি. সুমিথিয়ন প্রয়োগ করতে হবে।
  • পুকুরে সুমিথিয়ন দেওয়ার ২৪ থেকে ৩০ ঘন্টা পর প্রতি শতকে ৩০ থেকে ৫০ গ্রাম করে পাবদা মাছের রোণু মজুদ করা যাবে।

নার্সারি পুকুরে খাদ্য সরবরাহের তালিকা

প্রতি ১০০ গ্রাম রেণু পোনার জন্য দৈনিক যে খাবার গুলো দিতে হয়।

  • প্রথম ৫ দিন ১০০ গ্রাম ময়দা ও ২ টা সিদ্ধডিমের কুসুম এক সাথে মিশিয়ে সমান ভাবে ভাগ করে দিনে তিন বার খাওয়াতে হবে।
  • ৬ দিন থেকে ১০ দিন বয়সের রেণুকে ৪০% প্রোটিন সমৃদ্ধ ১৫০ গ্রাম নার্সারি ফিড সকাল ও সন্ধ্যায় সমান ভাগ করে খাওয়াতে হবে।
  • ১১ দিন থেকে ১৫ দিন বয়স পর্যন্ত ৪০% প্রোটিন সমৃদ্ধ ২০০ গ্রাম নার্সারি ফিড সকাল ও সন্ধ্যায় সমান ভাগ করে খাওয়াতে হবে।
  • ১৬ দিন থেকে ২৩ দিন বয়স পর্যন্ত ৪০% প্রোটিন সমৃদ্ধ ৩৫০ গ্রাম নার্সারি ফিড সকাল ও সন্ধ্যায় সমান ভাগ করে খাওয়াতে হবে।
  • ২৪ দিন থেকে ২৫ দিন বয়স পর্যন্ত ৪০% প্রোটিন সমৃদ্ধ ৫০০গ্রাম নার্সারি ফিড সকাল ও সন্ধ্যায় সমান ভাগ করে খাওয়াতে হবে।
  • এভাবে নার্সারি পুকুরে যত্ন সহকারে রেণু লালন পালন করলে প্রতি কেজি রেণু হতে ১ লক্ষ থেকে ১ লক্ষ ৩০ হাজার পোনা উৎপাদন করা সম্ভব।  

পাবদা মাছের রেণু চাষ পদ্ধতি সম্পকের্ জানা থাকলে এই মাছ চাষে চাষী লাভবান হতে পারবে।

Leave a Comment

Your email address will not be published.

0

TOP

X